কেমন গেল এ বছরের ল্যাপটপের বাজার?

av

এ বছর দেশে দুর্দান্ত ছিল ল্যাপটপের বাজার। প্রতিযোগিতামূলক দামে বিক্রি হয়েছে ল্যাপটপ। বাজার ঘুরে ক্রেতারা কিনেছেন তাঁদের পছন্দের মডেল। ২৫ হাজার টাকা থেকে শুরু করে তিন লাখ টাকা পর্যন্ত বিভিন্ন দামের ল্যাপটপ বাজারে ছিল। তবে বাজারে বেশি চলেছে মিডরেঞ্জ বা মাঝারি দামের ল্যাপটপগুলো।

এ বছর বাংলাদেশে ল্যাপটপের বাজার বেশ চাঙা ছিল বলে জানান একাধিক ল্যাপটপ বিক্রেতা প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তারা। দেশের বাজারে বেশ কিছু নতুন ল্যাপটপ এসেছে এ বছর।

অ্যাপল, আসুস, এসার, এইচপি, ডেল, লেনোভো, ফুজিৎসুসহ কয়েকটি মডেলের ল্যাপটপ ২০১৬ সালে বাংলাদেশের বাজারে এসেছে। ব্যবহারকারীদের প্রয়োজনীয়তার কথা মাথায় রেখে নতুন নতুন মডেলের ল্যাপটপ বাজারে এনেছে প্রতিষ্ঠান। ল্যাপটপের নকশা, সফটওয়্যার, হার্ডওয়্যারসহ বিভিন্ন lফিচার বিশ্লেষণ করে ল্যাপটপ কিনেছেন ক্রেতারা।

আসুস কর্তৃপক্ষের ভাষ্য, ২০১৬ সালে বাংলাদেশে প্রচুর আসুস ল্যাপটপ বিক্রি হয়েছে। যে পরিমাণ লক্ষ্যমাত্রা ছিল, তার চেয়েও বেশি বিক্রি হয়েছে ল্যাপটপ। মাঝারি দামের ল্যাপটপগুলোর চাহিদা ছিল বেশি। আসুসের ভিভোবুক নামের ল্যাপটপ বেশি কিনেছেন ক্রেতারা।

ডেল কর্তৃপক্ষের ভাষ্য, এ বছর তাদের জন্য অনেক ভালো ছিল। ২০ থেকে ৩০ মডেলের ল্যাপটপ এ বছর বাজারে এসেছে। অনেকেই নকশার দিক বিবেচনা করে ল্যাপটপ কিনেছেন এবার। এর মধ্যে ভালো চলেছে ইন্সপায়রন সিরিজের কোর আই৫-এর ৫৫৫৯ মডেলটি।

এইচপির সূত্র জানায়, গত বছরের চেয়ে এ বছর খুবই ভালো গেছে তাদের। ল্যাপটপের বিক্রি ছিল অনেক বেশি। বাংলাদেশের ল্যাপটপের বাজারে এইচপি এ বছর শীর্ষ অবস্থান দখল করেছে। এ বছর এইচপির ১৪ ও ১৫ ইঞ্চি মাপের ল্যাপটপের চাহিদা ছিল বেশি। এর মধ্যে প্রোবুক ৪৪০ ও ৪৫০ মডেল বেশি চলেছে।

আসুস ছাড়াও বাজারে এইচপি, এসার, লেনোভোর বিভিন্ন ব্র্যান্ডের ল্যাপটপ বিক্রি হয়েছে বেশি।

ডিসেম্বরে বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে এক্সপো মেকার আয়োজিত ল্যাপটপ মেলার এসার, আসুস, ডেল, এইচপি, লেনোভো ব্র্যান্ড অংশ নেয়। মেলায় এসব ব্র্যান্ডের ল্যাপটপে তরুণদের বেশ আগ্রহ দেখা যায়। মেলা থেকে প্রায় চার হাজার ল্যাপটপ বিক্রি হয়।

বছরের কিছু ল্যাপটপ:

আসুস: এ বছর যেসব ল্যাপটপ বাজারে বিক্রি হয়েছে, তার মধ্যে চমক বলতে ছিল ৬৪ জিবি র‍্যামের জি ৭০০-ভিও নামের গেমিং ল্যাপটপ। আসুসের গেমিং সিরিজের এ ল্যাপটপে ইনটেল কোর আই৭ প্রসেসর, জিটিএক্স ৯৮০ গ্রাফিকস থাকায় গেম খেলার জন্য এটি অনেকেই কিনেছেন এ বছর। এ বছর হালকা-পাতলা ল্যাপটপ বা আলট্রাবুক হিসেবে আসুস এনেছিল ‘জেনবুক ৩’। অ্যালুমিনিয়াম কাঠামোর এই ল্যাপটপে রয়েছে সাড়ে ১২ ইঞ্চির ফুল এইচডি ডিসপ্লে। ৯১০ গ্রাম ওজনের ল্যাপটপটি ১১ দশমিক ৯ মিলিমিটার পুরু। ইনটেল কোর আই৭ প্রসেসরের ল্যাপটপটির দাম ১ লাখ ৩৯ হাজার টাকা।

আসুসের চমক ছিল জি৭০০-ভিও।

অ্যাপল:চারটি মডেলে ধূসর ও রুপালি রঙে ২০১৬ সংস্করণের ম্যাকবুক প্রো বাজারে আসে। ১৩ দশমিক ৩ ও ১৫ দশমিক ৪ ইঞ্চি পর্দার এই ম্যাকবুকে প্রথমবারের মতো টাচবার ও টাচ আইডিসুবিধা যোগ করা হয়েছে। টাচবার ছাড়া ১৩ দশমিক ৩ ইঞ্চি পর্দার ম্যাকবুক প্রোর (কোর আই৫/২৫৬ গিগাবাইট এসএসডি) দাম ১ লাখ ৪৫ হাজার টাকা। টাচবারসহ ১৩ দশমিক ৩ ইঞ্চি পর্দার ম্যাকবুক প্রো (কোর আই৫/২৫৬ গিগাবাইট এসএসডি), ১৩ দশমিক ৩ ইঞ্চি পর্দার ম্যাকবুক প্রো (কোর আই৫/৫১২ গিগাবাইট এসএসডি) এবং ১৫ দশমিক ৪ ইঞ্চি পর্দার ম্যাকবুক প্রো (কোর আই৭/৫১২ গিগাবাইট এসএসডি/২ গিগাবাইট রেডিয়ন গ্রাফিকস) ল্যাপটপের দাম যথাক্রমে ১ লাখ ৭০ হাজার, ১ লাখ ৯০ হাজার এবং ২ লাখ ৬০ হাজার টাকা।

অ্যাপল ম্যাকবুক প্রো ২০১৬

এইচপি: এ বছর বাজারে আসে এইচপি প্যাভিলিয়ন সিরিজের ১৫-একে০২১টিএক্স মডেলের গেমিং ল্যাপটপ। এতে আছে ৩.৫ গিগাহার্টজ পর্যন্ত গতির ষষ্ঠ প্রজন্মের কোর আই৭ প্রসেসর, ৮ গিগাবাইট র‍্যাম, ২ টেরাবাইট হার্ডডিস্ক, ৪ গিগাবাইট গ্রাফিকস কার্ড এবং ১৫ দশমিক ৬ ইঞ্চি পর্দা। এর কি-বোর্ড অন্ধকারেও দেখা যায়। এর দাম ৮৩ হাজার ৭০০ টাকা।

এইচপি স্পেক্টর ১৩ নামে সবচেয়ে পাতলা ল্যাপটপ আনে এইচপি। এ ছাড়া স্পেক্টর এক্স৩৬০, এনভি, প্যাভিলিয়ন ও এইচডি প্যাভিলিয়ন সিরিজের ল্যাপটপও ঘোষণা দেয় এইচপি। এইচপি স্পেক্টর ১৩ মডেলের ল্যাপটপটি ১০ দশমিক ৪ মিলিমিটার পুরু, ওজন ১ কেজি ১১০ গ্রাম। এর দাম ১ লাখ ৪৯ হাজার টাকা। এ ছাড়া কোর আই থ্রি ও কোর আই৫-এর ৪৪০ মডেলের প্রোবুক ও ৪৫০ মডেলের প্রোবুক বাজারে এসেছে। এর দাম ৪২ হাজার থেকে ৫৬ হাজার টাকার মধ্যে।

এইচপি স্পেক্টর ১৩

লেনোভো: সপ্তম প্রজন্মের ইনটেল প্রসেসরের লেনোভো আইডিয়াপ্যাড ৩১০ ল্যাপটপ বাজারে আসে এ বছর। কোর আই৩, ৪ গিগাবাইট র‍্যাম ও কোর আই৫-এর ৮ জিবি র‍্যাম দুটি সংস্করণে এটি বাজারে আসে। দুটি ল্যাপটপে ১৫ দশমিক ৬ ইঞ্চি পর্দা, এক টেরাবাইট হার্ডডিস্ক ড্রাইভ, ডলবি মিউজিক ও এনভিডিয়া ৯২০ এমএক্স গ্রাফিকস কার্ড আছে। কোর আই ৩ সংস্করণটির দাম ৪১ হাজার ৯০০ টাকা। কোর আই৫ সংস্করণের মূল্য ৫২ হাজার ৫০০ টাকা।

লেনোভো আইডিয়াপ্যাড ৩১০

ডেল: ইন্সপায়রন ৫৫৬৭ মডেলের ল্যাপটপ বাজারে আসে। এতে ইনটেলের সপ্তম প্রজন্মের কোর আই৩, কোর আই৫ ও কোর আই৭ প্রসেসর রয়েছে। সংস্করণভেদে দাম ৪৩ হাজার ৫০০ থেকে ৭১ হাজার ৫০০ টাকা পর্যন্ত। এ ছাড়া ল্যাটিচিউড সিরিজের ই৭৪৭০ মডেলের কোর আই৭ ল্যাপটপ বাজারে আসে। এর দাম ১ লাখ ২৫ হাজার টাকা। ডেল এক্সপিএস আল্ট্রাবুকের দাম ১ লাখ ৪১ হাজার টাকা। এ বছর ভস্ট্রো-১৪ ৫৪৫৯ মডেলের নতুন স্টাইলিশ ল্যাপটপ আনে ডেল। মনেট নামে পরিচিত ইনটেল ষষ্ঠ প্রজন্মের কোর আই৭ প্রসেসরযুক্ত এই ল্যাপটপে ৮ জিবি র‍্যাম, ১ টেরাবাইট হার্ডড্রাইভ, ১৪ ইঞ্চি ডিসপ্লে, এনভিডিয়া জিফোর্স ৯৩০ এম মডেলের ৪ জিবি গ্রাফিকস কার্ড, ব্লুটুথ ও ওয়েবক্যাম রয়েছে। ল্যাপটপটির দাম ৭৫ হাজার ৫০০ টাকা।

ডেল এক্সপিএস আল্ট্রাবুক

এসার: এ বছর ই-সিরিজের কয়েকটি মডেলের ল্যাপটপ দেশের বাজারে আনে এসার। এর মধ্যে প্রিডেটর সিরিজের জি৯ মডেলের একটি ল্যাপটপের দাম ১ লাখ ৫৬ হাজার টাকা।

এসার ই-সিরিজের একটি ল্যাপটপ

ওয়ালটন: চলতি বছর থেকে ল্যাপটপের বাজারে এসেছে দেশি ব্র্যান্ড ওয়ালটন। প্রাথমিকভাবে চারটি সিরিজের মোট ২০টি মডেলের ল্যাপটপ বাজারে এনেছে। ২৯ হাজার ৫০০ থেকে ৯৫ হাজার ৫০০ টাকার মধ্যে পাওয়া যায় ওয়ালটনের ল্যাপটপ।

ওয়ালটনের একটি মডেল

Leave a comment

Abdullah Al Fahim
 

I love Digital Marketing & Technology. like be honest and being with honest people.I can build your website and optimization yor website(SEO).i take my job seriously....... Just Knock me.... 01748361602 http://facebook.com/av.fahim

Click Here to Leave a Comment Below 0 comments

Leave a Reply: